Parts of speech, সংজ্ঞা, এটি জানতে প্রধানত যা জানা দরকার

মোঃ আবুল বাশার

0 44

আমরা এর আগে Word এবং Parts of speech অংশে এই দুটির মধ্যে পার্থক্য এবং সম্পর্ক অংশে আলোচনা করেছিলাম। সেখানে বলা হয়েছিল যে, কোন শব্দকে তখনই Parts of speech বলা যাবে যখন ঐ শব্দটি কোন বাক্যে ব্যবহার করা হবে। সেখানে যে কোন অহংকার, বড়াই কাজ করবে না সেটাও বলা ছিল।

যাই হোক, এখানে একটি কথা বলা খুবই প্রয়োজন যে, আমরা ইংরেজি শিক্ষা বলতে দুটি বিষয় বুঝে থাকি। তা হলো ১। ইংরেজি শুদ্ধ, সুন্দর করে লিখতে পারা। ২। ইংরেজিতে শুদ্ধ করে কথা বলতে পারা। তাতে হয়তো মনের কিছু মাধুরী মিশানো হলো এই যা। আর ইংরেজিকে বা বাংলা যে কোন ভাষাকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে চাইলে সেই ভাষার শব্দ-ভান্ডার জানা দরকার এবং সেই শব্দকে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে জানা। সুতরাং আমি যদি কোন শব্দকে সঠিক উপায়ে ব্যবহার করে কোন বাক্য বা কথা তৈরি করতে পারি তাহলে নিশ্চিতরুপেই বলা যায় যে, আমার সে ভাষায় দখল আছে। মানে আমি ঐ ভাষা ভাল জানি। ঠিক ইংরেজিতেও ভাল করতে হলে জানতে হবে Word এবং Sentence.

শব্দকে বাক্যে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে হলে অর্থাৎ কোন শব্দ কোথায় কিভাবে বসবে তার নিয়ম জানা প্রয়োজন। আমরা এ পর্যায়ে ঐসব গুরুত্বপূর্ণ শব্দ সম্পর্কে জানব যারা বাক্যে ব্যবহৃত হয়ে শুদ্ধ বাক্য তৈরি করে। আর শুদ্ধ বাক্যের মধ্যে যে সকল শব্দ ব্যবহার করা হয় তারা হলো Parts of speech.

সংজ্ঞা: Parts of speech: বাক্যের অন্তর্গত প্রত্যেকটি অর্থবোধক শব্দকে Parts of speech বলে। সহজ কথায় বলা যায়, কোন শব্দ (Word) যখন কোন একটা বাক্যে ব্যবহৃত হয় তখন তাকে Parts of speech বলে।
শুদ্ধ ইংরেজি জানার ক্ষেত্রে Parts of speech এর প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য।

এখন আমরা জানব Parts of speech পড়ে আমাদের কি লাভ হবে। আমি আগেই বলেছি Parts of speech এর প্রয়োজনীয়তা লিখে শেষ করা অসম্ভব তারপরও আমরা বলতে পারি Parts of speech থেকে Mainly তিনটি বিষয় জানা একান্ত জরুরী। সেগুলি হল:
(a) Identifying Parts of Speech: অর্থাৎ Parts of Speech চিনতে হবে কারণ কোন শব্দটা কোন Parts of Speech তা যদি না ধরতে পারি তাহলে আমরা শব্দ সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারব না তাই একটা শব্দের অর্থ জানার পাশাপাশি আমাদের জানা দরকার শব্দটা কোন Parts of Speech.

(b) Word Function: শব্দের কাজ অর্থাৎ একটা শব্দ বাক্যে কি হিসাবে কাজ করবে। Noun হিসাবে না Adjective হিসাবে । যদি শব্দটা Noun হয় তাহলে Noun হিসাবে যদি শব্দটা Verb হয় তাহলে Verb হিসাবে কাজ করবে।

(c) Word Formation: শব্দ গঠন অর্থাৎ একটা শব্দ থেকে আরেকটা শব্দ গঠন করা। হয়তো একটা শব্দের অর্থ আমরা মুখস্থ করলাম, মুখস্থ করার সময় দেখতে হবে শব্দটা Noun না Adjective যদি শব্দটা Noun হয় তাহলে এর অন্যরূপগুলি যেমন: Adjective,Verb,Adverb কি হবে? যেমন: Success শব্দটা Noun এর অর্থ সফলতা এখন জানা দরকার এর অন্য রূপগুলি কি, সেগুলি হল: Success শব্দের Verb হল Succeed অর্থ সফল হওয়া। এর Adjective হল Successful অর্থ সফল। এর Adverb হল Successfully অর্থ সফলভাবে। এভাবে আমরা একটা শব্দ থেকে চারটা শব্দ জানতে পারি।

Parts of Speech- ই সমস্যা

ইংরেজি চর্চার ক্ষেত্রে Verb, Tense, Voice ইত্যাদি অনেক পরের কথা। এর আগেও অনেক কথা থাকে। এদের মধ্যে Parts of Speech অন্যতম। প্রত্যেক ভাষারই শব্দভান্ডার আছে এবং আছে নিজস্ব বাক্য কাঠামো শৈলী। যে কোন বাক্য গঠিত হয় Words বা শব্দের সমন্বয়ে। এ ক্ষেত্রে word arrangement একটি বড় ব্যাপার। আর এর চেয়ে বড় ব্যাপার হলো এসব শব্দের character বা চরিত্র বুঝা।

কারণ word-ই বাক্য গঠনের উপাদান। এ উপাদানের character বা চরিত্র না বুঝালে word-কে বাক্যে সঠিকভাবে ব্যবহার করা না যায় অর্থাৎ সঠিক বাক্য গঠন অসম্ভব হয়ে পড়ে। তাই আগে ধারণা নিতে হবে একটি word বাক্যে কিভাবে behave করে বা কী ভূমিকা পালন করে। এবং তা বুঝতে হলে Parts of Speech এর ব্যাপারে সুষ্পষ্ট এবং সম্যক জ্ঞান থাকা আবশ্যক। আমি মনে করি Parts of Speech বুঝতে পারার অর্থ ইংরেজি Grammar-এর ৫০ ভাগ বুঝা। কিন্তু পরিতাপরে বিষয় হচ্ছে শতকরা ৯০ জনেরই Parts of Speech-সম্পর্কে যথার্থ ধারণা (concept) নেই। না বুঝে মুখস্ত করে এবং শিক্ষকগণ সাধারণত তাই করান।

যেমন I go to school কিন্তু I go home. এক্ষেত্রে বলা হয় home-এর আগে to বসে না। কোন কারণ নেই। মুখস্ত রাখতে হবে। মূলতঃ home এ বাক্যে Adverb— Noun নয়। এবং ‘to’ একটি Preposition. Adverb কখনও Preposition নেয় না। কেবলমাত্র Noun বা Pronoun-ই প্রয়োজন হলে Preposition নেয়। কাজেই word-এর বুঝার জন্যই এবং word-কে Sentence-এ সঠিকভাবে arrange করার জন্যই Parts of Speech না জানার কোন বিকল্প নেই। আর এজন্য Parts of Speech logically বা যুক্তিসহকারে এবং কারণ বুঝে শিখতে হবে।

Parts of Speech শিখতে গিয়ে প্রথমেই আমরা উদাহরণসহ সংজ্ঞা মুখস্ত করে ফেলি। আমরা মুখস্ত করি “বাক্যের অন্তর্গত অর্থবোধক শব্দকে Parts of Speech বলে।” সংজ্ঞাটির বক্তব্য আমরা বুঝার চেষ্টা করি না। অর্থবোধক শব্দটি কি? তার মানে কি এই যে, কোন বাক্যে অর্থহীন শব্দও থাকে? এবং এরা কোন Parts of Speech নয়?

আলোচনার স্বার্থে ধরে নিলাম, বাক্যের অন্তর্গত Word-ই Part of Speech. কিন্তু water কোন Part of Speech? আমরা জবাব দেব Noun. এখন প্রশ্ন water কি এখানে কোন বাক্যের অন্তর্গত শব্দ? অবশ্যই না। তাহলে নিশ্চয় ইহা কোন Speech-এর Part না। সুতরাং water কোন Part of Speech-ই নয়।

তাহলে Noun হলো কিভাবে? Water একটি word মাত্র। কিন্তু I water the plant.– বাক্যটিতে ‘water’ একটি Part of Speech এবং তা Verb. আবার I like water colour. বাক্যে ‘water’ একটি Part of Speech এবং Adjective. আবার I drink water. বাক্যে ‘water’ Noun. কিন্তু শুধু water একটি word মাত্র। কোন Part of Speech নয়। কারণ এটি কোন বাক্যের অন্তর্ভূক্ত শব্দ নয়।
কাজেই Parts of Speech-র concept-এ গোলমাল হয়েছে। সুতরাং আমরা আবারও বলতে পারি, সকল Parts of Speech-ই words কিন্তু সকল words Parts of Speech নয়।

আবার কাউকে যদি জিজ্ঞাসা করা হয়, Bangladesh কোন Part of Speech? চোখ বন্ধ করে কেউ জবাব দেবে Noun. কিন্তু Bangladesh team won the match. বাক্যে ‘Bangladesh’ শব্দটি ‘team’ Noun-টিকে qualify করেছে এবং এটি Adjective. সুতরাং নাম বুঝালেই Noun হয় না।

কাজেই word-এর বাহ্যিক চেহারা বা রূপ দেখে সেটি কোন Part of Speech তা নির্ণয় করা যাবে না। বাক্যে word-টি কী ভূমিকা পালন করছে তার উপর নির্ভর করবে word-টি কোন Part of Speech.

উপরের আলোচনা থেকে বলা যায়, কোন word বাক্যে কিভাবে behave করবে বা করাতে হবে, এ ব্যবহারিক দিকগুলো ভালভাবে না বুঝে Parts of Speech পড়লে কোন লাভ হবে না। Verb-এর Subject বা Object অবশ্যই Noun বা Pronoun হবে। অথবা Noun-এর তুল্য হবে। কিন্তু ‘আমার একটি কলম আছে’ ইংরেজি My have a pen. না হয়ে I have a pen হয়। প্রকৃতপক্ষে এর কারণটি হচ্ছে My শব্দটি Noun বা Pronoun বা Noun-এর সমতুল্যও নয়। তাই এটি Subject হতে পারে না। This is my pen বাক্যে my ‘pen’ noun-টিকে qualify করে Adjective হয়েছে। My যখনই noun-কে qualify করতে বাক্যে বসবে, তখনই এটি Adjective এবং ‘my’ সাধারণতঃ noun-কে qualify করতেই বাক্যে ব্যবহৃত হয়।

কিন্তু Pronoun-এর সংজ্ঞার পরে উদাহরণ হিসাবে ‘my’-কে Pronoun রূপে উল্লেখ করেছে বাজারের প্রচুর বই। কাজেই আমাদের তাত্ত্বিক সংজ্ঞা ও ব্যবহারিক ইংরেজির মধ্যে প্রচুর ফারাক। ব্যাপারটি ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে confusing এবং অযৌক্তিক। তাই তারা প্রায়শ্চই ধাঁধাঁয় পড়ে এবং তাদের মধ্যে ইংরেজির প্রতি অনীহার সৃষ্টি হয়। ফলে জন্ম নেয় ইংরেজি আতঙ্ক। ইংরেজিতে A+ নিয়ে পাস করেও ভর্তি পরীক্ষায় ইংরেজিতে ফেল করার কারনও logic না বুঝে মুখস্ত করা।
তাদের এ confusion ও আতঙ্ক দূর করার দায়িত্ব শিক্ষকদের। কিন্তু আমি মনে করি, অতীত বর্তমান নির্বিশেষে আমাদের দেশের ইংরেজি শিক্ষকদের অনেকেই এ ব্যাপারে confused। তাদের নিজেদেরই Parts of Speech-এর concept clear নয়। সুতরাং ফল যা হবার তাই হচ্ছে। জাতির ইংরেজির প্রতি অনীহা এবং ইংরেজি একটি জাতীয় সমস্যা।
ইংরেজি একটি logical ভাষা। প্রত্যেক subject-এরই কিছু basic concept থাকে এবং তা অবশ্যই logical। এবং তা ইংরেজিরও আছে। এ basic concept-গুলো logically শিখে যৌক্তিকভাবে ব্যবহারিক প্রয়োগের চর্চা করলে ইংরেজি বিষয়ে সন্তোষজনক সাফল্য অর্জন সম্ভব।

চলমান…………………………….

শিক্ষা রিলেটেড সংবাদ দেখুন এখানে

ডিপিএড সংক্রান্ত পোস্ট দেখুন এখানে

 

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments
Loading...