মাটি খুঁড়লেই মিলছে সোনা!

শাবল-কোদাল নিয়ে ছুটছে গ্রামবাসী

0 205

রুপা নয়, কিংবা তামা। এ যে সোনা! আর চোখের সামনে যদি সেই সোনার পাহাড় ভেসে উঠে তবে তো যে কেউ চাইবে পাহাড়টা মাথায় নিয়ে বাড়ি ফিরতে। অবাক করার মতো মনে হলেও সম্প্রতি মধ্য আফ্রিকার দেশ কঙ্গোয় এমনই এক সোনার পাহাড়ের দেখা মিলেছে। তাইতো সেই অঞ্চলের আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা মিলে পাহাড়টি বুক খুঁড়তে দিনরাত একাকার করে দিচ্ছেন।

কিন্তু কঙ্গোর ওই পাহাড়ে সত্যিই কি সোনা রয়েছে? শোনা যাচ্ছে, ওই পাহাড়ের পাথুরে মাটিতে নাকি প্রায় ৬০ থেকে ৯০ শতাংশই আকরিক সোনা।

দেশটির দক্ষিণ কিভু প্রদেশের লুহিহি এলাকায় অবস্থিত সেই পাহাড়টির খবর জানা যায় গেল ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে। খবরটি জানাজানির পরই পাহাড়টিতে হাজার হাজার মানুষ ছুটে যায়। পাহাড় খুঁড়ে সবাই সোনা খুঁজতে শুরু করেন।

আহমেদ আলগোবারি নামে একজন সাংবাদিক সোনা খোঁজার সেই ভিডিও নেট দুনিয়ায় শেয়ার করেছেন। গেল ২ মার্চের সেই ভিডিওটি এরইমধ্যে ভাইরাল হয়েছে। গতকাল রবিবার পর্যন্ত সাড়ে ২৭ হাজারের বেশি নেটিজেন ভিডিওটি দেখেছেন।

ভিডিওতে দেখা যায়, ওই পাহাড় ঘিরে শাবল-কোদাল নিয়ে সোনা খুঁজতে ঘাম ঝরাচ্ছে গ্রামবাসী। অনেকে খালি হাতেই পাহাড়ের মাটি সংগ্রহ শুরু করেছেন। সেই মাটিতে সোনার সন্ধান করছেন। নিজের টি-শার্ট উল্টে তাতে মাটি ভরে নিয়ে যেতেও দেখা গেছে একজনকে।

ওই সাংবাদিক গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, পাথুরে মাটি থেকে সোনার উপাদান আলাদা করতে একটি পাত্রের পানিতে তা ধুয়ে নিচ্ছে গ্রামবাসী। এভাবেই হাতের মুটোয় সোনা উঠে আসছে!

কিন্তু এই সোনা খোঁজাকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসীর মধ্যে যে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তা নিয়ন্ত্রণে রাখতে ইতোমধ্যে স্থানীয় প্রশাসন ওই পাহাড়ে খননকাজ নিষিদ্ধ করেছে।

দক্ষিণ কিভুর খনিমন্ত্রী বেনান্ত বুরুমে মুহিগিরওয়া জানিয়েছেন, কিভু প্রদেশের রাজধানী শহর বুকাবু থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার দূরে যে গ্রামে ওই পাহাড়টি রয়েছে, তাতে তিল ধারণেরও ঠাঁই নেই। আগামী নির্দেশিকা দেয়া পর্যন্ত খননকাজ নিষিদ্ধ থাকবে।

সূত্র: ব্রেকিংনিউজ

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments
Loading...