Microsoft office 2019 ভাইরাসমুক্ত এক্টিভেশন

0 41

মাইক্রোসফট অফিস-২০১৯

মাইক্রোসফট অফিস-২০১৯ নিয়ে নতুন কিছু বলার নেই। কেননা এর মধ্যে বেশিরভাগ কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ব্যবহারকারী ব্যবহার করে ফেলেছেন। তবে আজকের পোস্টটি মূলত এর এক্টিভেশন নিয়ে।

আমাদের দেশের বেশিরভাগ সফটওয়ার ব্যবহারকারীই মূলত ফ্রি ভার্সন ব্যবহারে অভ্যস্ত। এটি ব্যবহার করার জন্য আমরা বিভিন্ন ধরণের একটিভেটর ব্যবহার করি। ফলে বেশিরভাগ সময় ভাইরাস বা ম্যালওয়ার বা ক্ষতিকর সফটওয়্যার প্রবেশ করে আমাদের কম্পিউটারকে স্লো করে দেয় বা গুরুত্বপূর্ণ ফাইলকে হাতিয়ে নিতে পারে। Microsoft office 2019 ভাইরাসমুক্ত এক্টিভেশন খুবই প্রয়োজন।

ফলে আমাদের জন্য এটি ক্ষতিকারক হয়ে যায়। আজকে আপনাদের সামনে এমন একটি উপায় নিয়ে হাজির হচ্ছি যা আপনাকে একটিভেট করবে তবে কোন ভাইরাস থাকবে না। আমি এভাবেই ব্যবহার করছি। নিয়ম বলার আগে আমরা এটি সম্পর্কে কিছু জানার চেষ্টা করি।

  মাইক্রোসফট অফিস-২০১৯ কী?

মাইক্রোসফট অফিস ২০১৯ হচ্ছে মাইক্রোসফট অফিসের একটি উৎপাদনশীলতা স্যুইটের বর্তমান সংস্করণ যা অফিস ২০১৬ এর পরবর্তী সংস্করণ হিসাবে প্রকাশ পেয়েছে। এটি উইন্ডোজ ১০ এবং ম্যাক ওএস এর সাধারণ প্রাপ্যতার জন্য ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ সালে মুক্তি হয়েছিল। পূর্বের অফিস ৩৬৫ এর কিছু বৈশিষ্ট্য গ্রাহকদের কাছে সীমাবদ্ধ ছিল তা এই রিলিজে সীমাবদ্ধতাকে উপেক্ষা করা হয়েছে।

 

এটি ২৭শে এপ্রিল, ২০১৮ সালে উইন্ডোজ ১০ এর জন্য মাইক্রোসফট অফিস ২০১৯ বাণিজ্যিক প্রিভিউ প্রকাশ করেছিল। ১২ই জুন, ২০১৮ সালে মাইক্রোসফট ম্যাকওএস এর জন্য একটি পূর্বরূপ প্রকাশ করেছে।

 

অফিস ২০১৯ এ পূর্বের অফিস ৩৬৫ এর মধ্যে প্রকাশিত সকল বৈশিষ্ট্য রয়েছে, এর পাশাপাশি ইঙ্কিং বৈশিষ্ট্যগুলির উন্নতি, রূপান্তর এবং জুম বৈশিষ্ট্যসহ পাওয়ারপয়েন্টের নতুন নতুন অ্যানিমেশন বৈশিষ্ট্য, এবং তথ্য বিশ্লেষণের জন্য এক্সেল নতুন সূত্র এবং চার্ট সংযুক্ত করা হয়েছে।

ম্যাক ব্যবহারকারীদের জন্য, ফোকাস মোড ওয়ার্ড নিয়ে আসা হবে, ২ডি মানচিত্র এক্সেল আনা হবে এবং নতুন রূপান্তর অবস্থান্তর, এসভিজি সাপোর্ট এবং 4k ভিডিও উৎপাদন অন্যান্য বৈশিষ্ট্যসহ পাওয়ারপয়েন্টে আসবে।

মাইক্রোসফট অফিস-২০১৯ আমাদের জন্য-

আমরা জানি, ডিজিটাল অফিস ব্যবস্থাপনায় সবাই এখন নির্ভরশীল মাইক্রোসফট অফিসের ওপর। আর মাইক্রোসফট ও তাদের অফিস সফটওয়ারে বিভিন্ন সময়ে চাহিদানুযায়ী পরিবর্তন এনে এর ব্যবহারকারীদের আরও বেশি নির্ভরশীল করে ফেলেছে অফিসে। প্রতিটি ডেস্কটপ কম্পিউটার এবং মোবাইলে রয়েছে মাইক্রোসফট অফিসের কোনো না কোনো সংস্করণ। এতে মিলেছে ওয়ার্ড, এক্সেল, পাওয়ার পয়েন্ট ও ওয়াননোটের উন্নত সংস্করণ।

২০১৯ এর এক্সেলে যুক্ত করা হয়েছে নতুন ইউজার ইন্টারফেস, ফরমুলাস, চার্ট ও দ্রুত গবেষণা করে রিপোট প্রদর্শন সুবিধা। পাওয়ার পয়েন্টে আরও সহজে প্রেজেন্টেশন তৈরি করার জন্য নতুন ফিচার ও থিম যুক্ত করা হয়েছে। এছাড়া সুন্দর আইকন, ভেক্টর গ্রাফিক্স ও থ্রিডি ছবি যুক্ত করা হয়েছে এতে। আগের কিছু নিরাপত্তা বাগ ফিক্সড করার পাশাপাশি ক্লাউড সেবার দিকে বেশি নজর দেয়া হয়েছে ।

মাইক্রোসফট অফিস-২০১৯ একটিভ করতে আমাদের যা করতে হবে-

এটি ভাইরাসমুক্ত একটিভেশনের জন্য আপনাকে প্রদত্ত গুগল ড্রাইভ লিংক থেকে প্রথমে ফাইলটি ডাউনলোড করতে হবে।

তাছাড়া আপনাকে অনলাইন থেকে ইন্সটলার ভার্সন ডাউনলোড লিংক দেয়া থাকবে। এটি শুধুমাত্র পারসোনাল ব্যবহারের জন্য প্রযোজ্য বা শিক্ষামূলক কাজের জন্য শেয়ার করা হচ্ছে।

যদি কেউ ব্যবসায়িক কারণে ব্যবহার করতে চান তাহলে আপনি কিনে ব্যবহার করতে পারেন। যদিও সকল ক্ষেত্রে সুবিধা সমূহ একই।

 

১। প্রদও গুগল ড্রাইভ লিংক থেকে .txt ফাইল ডাউনলোড করবেন। এর পর ডাউনলোড করা ফাইল এর .txt এক্সটেনশন এর বদলে এক্সটেনশন .cmd (ডটসিএমডি)করে দিবেন।

২। মাইক্রোসফট অফিস ProPlus2019Retail ভার্সন আগের যথানিয়মে ইনস্টল করবেন।

৩। আমার কাছে থেকে প্রদত্ত অর্থাৎ গুগল ড্রাইভ থেকে ডাউনলোড করা পরিবর্তিত ফাইল (.cmd) এর উপর ডাবল ক্লিক করবেন।

৪। কম্পিউটার বা ল্যাপটপ রির্স্টার্ট দেবেন। তারপর মাইক্রোসফট অফিস ২০১৯ চালু করে দেখবেন আর বারবার বিরক্তিকর এক্টিভেশন করার মেসেজ দিবে না।

আলোচনার কোন অংশ যদি না বুঝে থাকেন দয়া করে পোস্টটির নিচে কমেন্টস করবেন। আমি যথাসাধ্য সমাধান দেয়ার চেষ্টা করব।

ফ্রি ফাইলটি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

মূল সফটওয়ার ডাউনলোড লিংক যথাক্রমে প্রথম, দ্বিতীয় অথবা আপনি যে কোন স্থান থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

বি.দ্র. মাইক্রোসফট কোম্পানি পোস্ট এর লিংক ডিলিট করার অধিকার সংরক্ষণ করেন। যদিও এটি শুধুমাত্র শিক্ষামূলক কাজের জন্য ব্যবহৃত হওয়ার উদ্দেশ্যে লিখিত। কোন ব্যবসায়িক কাজে এর ব্যবহার হলে লেখক দায়ি নয়।

এজাতীয় পোস্ট পড়ুন এখান থেকে

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments
Loading...